ছাফী সিরাপ খেলে কি হয় ও খাওয়ার নিয়ম কি

বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিযোগিতামুক্ত ঔষধ Safi syrup এর উপকারিতা, খাওয়ার নিয়ম, ছাফী সিরাপের অপকারিতা সহ বিস্তারিত জানিয়ে দিবো এই লেখার মাধ্যমে।

ছাফী সিরাপ এর কাজ কি

ছাফী সিরাপ হলো ইউনানি ফর্মুলার একটি ঔষধ, যার মুল গ্রুপ বা জেনেরিক শরবত মুছাফফি। সম্পুর্ণ অর্গানিক উপায়ে তৈরি এই ঔষধটি আমাদের শরীরের বিষাক্ত অনেক টক্সিন শরীর থেকে বের করে, রক্তকে পরিশোধন করতে পারে। যার ফলে রক্ত দূষণ থেকে শরীরকে বাঁচিয়ে রাখতে সক্ষম হয়। ছাফী সিরাপ মুলত কয়েকটি কাজ করে, পর্যায়ক্রমে তার কাজসহ বিস্তারিত তুলে ধরছি।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 1

ছাফী সিরাপে কি কি আছে

প্রতি ৫ মিলি সিরাপে আছে (জলীয় নির্যাস আকারে)- সে সোনাপাতা ১৭.০০ মিগ্রা, রেউচিনি ১৩.০০ মিগ্রা, কালকাসুন্দে ১২.৫০ মিগ্রা, তুলসী ২.৫০ মিগ্রা, তেউরী মূল ২.০০ মিগ্রা, গোলাপ ফুল ২.০০ মিগ্রা, মুন্ডীরী ফুল ২.০০ মিগ্রা, নীলকণ্ঠী ২.০০ মিগ্রা, ক্ষেতপাপড়া ২.০০ মিগ্রা, অপরাজিতা ২.০০ মিগ্রা, নাগদনা ২.০০ মিগ্রা, শাপলা ফুল ১.২৫ মিগ্রা, শিশু পাতা ১.২৫ মিগ্রা, রক্তচন্দন ১.২৫ মিগ্রা, গুলঞ্চ ১.২৫ মিগ্রা, হরীতকী ১.২৫ মিগ্রা, একাঙ্গি ১.২৫ মিগ্রা, চিরতা ১.২৫ মিগ্রা, কালমেঘ ১.২৫ মিগ্রা, রক্তকাঞ্চন ১.২৫ মিগ্রা, নিম ১.২৫ মিগ্রা, হলুদ ১.২৫ মিগ্রা এবং সহযোগী উপাদান পরিমাণমত ।

ছাফী ক্যাপসুলে কি কি আছে

প্রতি ক্যাপসুলে আছে- সোনাপাতা ৬০.০০ মিগ্রা, রেউচিনি ৫২.০০ মিগ্রা, কালকাসুন্দে ৫০.০০ মিগ্রা, তুলসী ১০.০০ মিগ্রা, তেউরী মূল ৮.০০ মিগ্রা, গোলাপ ফুল ৮.০০ মিগ্রা, মুন্ডীরী ফুল ৮.০০ মিগ্রা, নীলকণ্ঠী ৮.০০ মিগ্রা, ক্ষেতপাপড়া ৮.০০ মিগ্রা, অপরাজিতা ৮.০০ মিগ্রা, নাগদনা ৮.০০ মিগ্রা, শাপলা ফুল ৫ মিগ্রা, শিশু পাতা ৫.০০ মিগ্রা, রক্তচন্দন ৫.০০ মিগ্রা, গুলঞ্চ ৫.০০ মিগ্রা, হরীতকী ৫.০০ মিগ্রা, একাঙ্গি ৫.০০ মিগ্রা, চিরতা ৫.০০ মিগ্রা, কালমেঘ ৫.০০ মিগ্রা, রক্তকাঞ্চন ৫.০০ মিগ্রা, নিম ৫.০০ মিগ্রা, হলুদ ৫.০০ মিগ্রা এবং সহযোগী উপাদান পরিমাণমত 

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 2

ছাফী সিরাপ এর উপকারিতা

ছাফী মূল্যবান প্রাকৃতিক উপাদানের সমন্বয়ে প্রস্তুত বহুমুখী গুণসম্পন্ন হারবাল পলিফার্মাসিউটিক্যালস ওষুধ, যা রক্ত এবং চর্ম রোগের চিকিৎসায় অত্যন্ত কার্যকরী। ছাফী রক্ত বিশুদ্ধের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াকে উদ্দীপ্ত করার মাধ্যমে রক্ত পরিশোধন করে, মূত্র ও ঘর্ম নিঃসরণ বৃদ্ধি করে এবং পরিপাকতন্ত্রকে উদ্দীপ্তকরণের মাধ্যমে অস্ত্রের গতি বৃদ্ধি করে। ছাফী নাকের রক্তক্ষরণ বন্ধ করে, কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে, কোষস্থ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং ঋতু পরিবর্তনকালীন সৃষ্ট বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।
ছাফী ১৯৩৯ সাল থেকে কোন বিরূপ প্রতিক্রিয়া ছাড়াই সফলতার সাথে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

ছাফী সিরাপ থাকা উপাদান কি কাজ করে

ছাফী সিরাপে থাকা মুল উপাদানগুলো যেভাবে আমাদের শরীরে কাজ করে তার সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলো-
সোনাপাতাঃ পাকস্থলীকে পরিষ্কার রাখে এবং চর্মরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে । রেউচিনি: রক্ত পরিশোধক। ইহা লিভারের কার্যকারিতাকে উন্নত করে এবং কোষ পুনঃমেরামত করে ।
নিম: রক্ত পরিশোধক এবং সকল প্রকার চর্ম রোগ নিরাময় করে।
চিরতা: রক্ত পরিশোধক এবং ত্বককে বিষমুক্ত করার মাধ্যমে কোমল ও মসৃণ করে ।
তুলসী: রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 3

ছাফী সিরাপ কেন খায়

রক্ত দূষণ, ফোড়া, ব্রণ, ফুসকুড়ি, বিবর্ণতা, একজিমা, সোরাইসিস, খোস-পাঁচড়া, নাকের রক্তক্ষরণ, কোষ্ঠকাঠিন্য, স্থূলতা, অবসাদ, হাম এবং প্রস্রাবকালীন জ্বালা-পোড়া থেকে মুক্ত থাকার জন্য ছাফী সিরাপ খেতে হয়।

তাছাড়া অতিরিক্ত মেদ কমানোর জন্য ছাফী সিরাপ খায়, যারা মেদ কমাতে চান, তাদের জন্য এই সিরাপ একটি আদর্শ ঔষধ। তবে safi syrup খাওয়ার পর পেট ভরে খাবার খায়া যাবেনা। পেট ভরে খাবার খেতে গেলে, শরীরের ওজন বৃদ্ধি পেতে পারে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 4

ছাফী সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

সিরাপ : প্রাপ্ত-বয়স্ক: ২-৪ চা চামচ দৈনিক ১-২ বার। অপ্রাপ্ত-বয়স্ক: ২-১ চা চামচ দৈনিক ১-২ বার।
ক্যাপসুল : ১ ক্যাপসুল দৈনিক ২ বার অথবা রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করতে হবে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 5

ছাফী সিরাপ এর অপকারিতা বা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

নির্ধারিত মাত্রায় সেবনে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি। সঠীক ফর্মুলা অনুযায়ী উৎপাদিত কোন ইউনানি ঔষধই মানবদেহের কোন ক্ষতি করেনা। ছাফি সিরাপ শুধু বাংলাদেশেই নয়, ভারত ও পাকিস্থানেও নন্দিত একটি প্রতিষ্টান, তাই এই সিরাপ নিঃস্বন্দেহে খাওয়া যাবে।
প্রতিনির্দেশনা– কোন প্রতি-নির্দেশনা নেই

Advertisements
Ad 6

আরো পড়ুন- হামদর্দ কারমিনা সিরাপ এর উপকারিতা

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 7

Leave a Comment

অর্ডার করুন