দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা

দ্রুত বীর্যপাতের চিকিৎসা কি? দ্রুত বীর্যপাত কাকে বলে? একজন পুরুষ তার সঙ্গিনীর সাথে যৌনমিলনকালে পর্যাপ্ত সময় দিতে না পারাকে দ্রুত বীর্যপাত বলে। সাধারণত যৌনসঙ্গমে ৭-১০ মিনিট পর্যন্ত সময় দিতে হয়। কিন্তু তার চেয়ে কম সময় মিলনকারী ব্যক্তিকে দূর্বল হিসাবে চিহ্নিত করা হয়।

দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা নিতে অনেকেই বিভিন্ন ডাক্তার কবিরাজ দেখান, আসলে কে কতটুকু সফল, তা জানা মুশকিল। তবুও কিছু কিছু রোগীর কাছ থেকে মোটামুটি জানতে পারলেও সব জানা যায়নি। এক্ষেত্রে রোগীর কয়েকটা দূর্বলতা আমি জানতে পেরেছি। তা হলো রোগীর অতিরিক্ত হতাশা, আর্থিক ক্ষয়ক্ষতির চিন্তায় আর চিকিৎসা না করা, বিভিন্ন জনের কুমন্ত্রণা, নিয়মিত ঔষধ সেবন না করা। তবে আজকে কিছু টিপস দেয়ার চেস্টা করবো, যা থেকে মোটামুটি একটা ধারনা পাবেন।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 1

যৌন দূর্বলতা কি

দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা নেয়ার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যৌন দূর্বলতা কি? এবং আপনার সমস্যা মুলত কোথায়? কিছু কিছু চিকিৎসক আপনাকে এক কথায় বলে ফেলে এগুলো কোন সমস্যাই নয়, আবার কেউ কেউ আপনাকে এতো ভয় পাইয়ে দেয় যে, এর চেয়ে এজীবন না রাখাই ভাল। দুজনেই খাটি বাঙালী! তাই জাতীগতভাবে তারা ঠিক আছে। আপনি হলেও তাই করতেন। এগুলো জাতের দোষ!!

যৌন দূর্বলতা মুলত একে বলে, যখন আপনার যৌন মিলন করা প্রয়োজন অর্থাৎ সঙ্গীর ইচ্ছা আছে, আপনারও মানসিক ইচ্ছা আছে কিন্তু যৌন দন্ড প্রস্তুত হতে বিলম্ব হচ্ছে বা হচ্ছেইনা। আবার হলেও সামান্য সময় অর্থাৎ ঘড়ির কাটায় ২০-২৫ গণনা করার সময়টুকুও দিচ্ছেনা। তার আগেই বীর্যপাত হয়ে সঙ্গীনীকে এবং আপনাকে হতাশ করেছে, তার নাম ই হলো যৌন দূর্বলতা। আশাকরি বুঝাতে পেরেছি।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 2

ইরেক্টাল ডিসফাংশন এর চিকিৎসায় যা জানতে হয়

ইরেক্টাল ডিসফাংশন এর চিকিৎসার আগে যেসব বিষয় জানা দরকার, তা হলো রোগীর
লিভারজনিত সমস্যা যেমন- বদহজম বা কোষ্ঠকাঠিন্য ছিলো কিনা,
হার্ট ডিজিজ বা ডাইয়বেটিস আছে কিনা
রক্তে নাইট্রিক অক্সাইড এর ঘাটতি আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখতে হবে।
মানসিক চাপ বা অতিরিক্ত দূশ্চিন্তা অথবা অনিদ্রা আছে কিনা,
আইবিএস এর সমস্যা থাকলেও যৌন দুর্বলতা দেখা দিতে পারে।
অতীতের কোন অপরাধ প্রবনতা বাড়ানোর মতো স্মৃতি তাড়া করলেও ইরেক্টাল ডিসফাংশন হতে পারে।
অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ বা হস্তমৈতুনের ফলেও পুরুষত্বহীনতা দেখা দেয়।
আগে এসবের সঠিক চিকিৎসা করে নিতে পারলেই যৌন দুর্বলতা দূর করা সম্ভব।

ধ্বজভঙ্গ রোগের চিকিৎসা কি

যদি বিশেষ মুহুর্তে আপনার দন্ড ঠিকমত উত্তেজিত হতে না পারে, বা হতে অনেক্ষন মহিলাদের মতো শৃঙ্গার করতে হয়, তাহলে আপনাকে উত্তেজিত হওয়ার চিকিৎসা করতে হবে। এটা হয়ত অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ অথবা হস্তমৈথুনের প্রভাবে লিঙ্গের ভিতরে থাকা ছোট ছোট শিরাগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। নাহয় সবার ঠিকমতো লিঙ্গ শক্ত হচ্ছে, আপনার হচ্ছেনা কেন? বিভিন্ন সময় পরকিয়ার খবর আমরা কেন শুনতে পাই?

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 3

তাই অবশ্যই এবং এখন থেকেই লিঙ্গোত্থানজনিত সমস্যার চিকিৎসা করা দরকার। এর জন্য বিভিন্ন প্রকারে বীজ জাতীয় খাবার খাওয়ার বিকল্প নাই। এটাই মুল চিকিৎসা বা ঔষধ বলতে পারেন। তাছাড়া বিভিন্ন কোম্পানির উত্তেজক ট্যাবলেট আছে এগুলোও ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে সেবন করা যায়। আমি সাজেস্ট করি ভাল ঘরোয়া কবিরাজের হারবাল পাউডার বা হালুয়া যাকে সেমিসলিড বলা হয়। তবে তা অবশ্যই বিশ্বস্ত কারো কাছ থেকে নিতে হবে। আমাকে বললে আমি বলবো বৃক্ষমুলের কথা। এখন অনলাইনের যুগ, আপনি নিজেই ভালমন্দ যাচাই করে নিতে পারবেন।

টাইমিং বৃদ্ধির ঔষধ কি

টাইমিং বৃদ্ধির ঔষধ হিসাবে বাজারে প্রচলিত অনেক কিছু পাবেন, যা আপনি যতদিন খাবেন ততদিন ভাল থাকবেন। আসলেও এগুলো এরকমই, তবে এগুলো বেশী দামে না কিনে একসাথে পাইকারী নেয়ার একটা ব্যবস্থা করে নিতে পারেন। আর ৮-১০ হাজার টাকা খরচ করার ক্ষমতা থাকলে একটা চিকিৎসা নিতে পারেন, হামদর্দ থেকে যেখানে একটা ফ্রোডেক্স ট্যাবলেট এর দাম ৪০ টাকার মতো। দৈনিক ২ টা করে ২ মাস খেতে হয়। সাথে ৫০-৬০ টাকা মুল্যের এনডিউরেক্স দৈনিক ১ টা খেতে হবে ২ মাস। সাথে আরও আছে কুশতা কলয়ী ও ক্যালসিয়াম জাতীয় ঔষধ। সব মিলিয়ে ১০ হাজারেরও বেশী খরচ হবে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 4

আর যদি ৪৫ বছরের বেশী বয়স হয়ে থাকে, আমি বলবো এগুলো না খেয়ে নগদ নারায়নই ভাল। ধীরে ধীরে খরচ হবে, সমস্যাও হবেনা এমন কিছু খেয়ে যান। আমি ওয়েসিস মেডিকেল হল থেকে কয়েকবার কিনেছি, দামও অনেক কম রেখেছিল। চাইলে নিতে পারেন। এটা জাস্ট সাজেশন, কোন প্রমোট মনে করলে, এটা এড়িয়ে যাবেন। পরামর্শের জন্য এসেছেন, না পেলে হয়ত মন্দ বলবেন তাই দিলাম।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 5

যৌন শক্তি বৃদ্ধির প্রাকৃতিক চিকিৎসা

প্রাকৃতিক চিকিৎসা বলতে বেশী বেশী করে প্রোটিন জাতীয় খাবার খাবেন। ডিম, দুধ, পনির, মাছ মাংস খাবেন নিয়মিত। কয়েকজাতের বাদাম, খেজুরের লিকুইড এর সাথে দুধ ও মধু মিশিয়ে খাবেন। ডায়বেটিস না থাকলে। আলকুশির বীজ, অশ্বগন্ধা, ভুঁইকুমড়া, বীর্যমুল, এসবের পাউডার পাওয়া যায়, ঢাকার মৌলভীবাজারে, ৫০-১০০ গ্রাম করে কিনে এনে একত্রে মিশিয়ে মধু দিয়ে খাবেন। এগুলো আসলে সম্পুরক খাদ্য, তাই সুযোগ পেলেই খেতে হবে। আর এসব খেলে আশাকরা যায় একটু একটু করে ইম্প্রুভ হবে।

Advertisements
Ad 6

মনে রাখবেন, দ্রুত বীর্যপাতের চিকিৎসা করার চেয়ে, প্রতিরোধই শ্রেয়। তাই এই সমস্যা দেখা দেয়ার আগেই বেশি বেশি প্রোটিনযুক্ত খাবার খাবেন, হারবাল ষ্টোর এ কিছু পথ্য পাওয়া যায়, বছরে অন্তত ১ মাস খাবেন। ৬০ বছরেও কামশক্তি কমবেনা।

হারবাল ষ্টোর নামে এফবির আইডিতে নক করে সংক্ষিপ্ত বিবরন লিখে দিবেন। এবং কিছুক্ষণ পরই ফিরতি মেসেজে আপনার দেয়া বিবরণের ভিত্তিতে কি কি খেতে হবে, এবং এর দাম কত তা লিখে দিবে। অর্ডার করতে চাইলে আপনি আবার রিপ্লে দিবেন, না চাইলে কোন রিপ্লে দেয়ার প্রয়োজন নাই। আপনাকে আর ঐ আইডি থেকে কোন প্রকার ডিষ্ট্রার্ব করবেনা।

পরশেষে বলবো, চিকিৎসার চেয়ে দৈনন্দিন যে ক্ষয় হবে, তা এসব খাদ্য গ্রহনের মধ্যমে পূর্ণ করা সম্ভব। না জানার কারনে হোক বা বেশী জানার কারনে হোক, অবহেলা করলে যদি বেশী ঘাটতি দেখা দেয় তাহলে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দ্ধারা দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা গ্রহন করতে হবে।

আরও পড়ুন – মেথীর উপকারিতা কি

আর যদি দ্রুত বীর্যপাত রোধ করার কমপ্লিট চিকিৎসা নিতে চান, তাহলে যোগাযোগের ব্যবস্থা দেয়া আছে। তবে এই ঔষধের দাম অনেক বেশি হওয়ায় সবাইকে উৎসাহিত করিনা। ৩০ দিনের ৩০টা ক্যাপসুল ৪৫০০ টাকা, যদি ইচ্ছা এবং সামর্থ থাকে যোগাযোগ করতে পারেন। আমার হোয়াটসএ্যাপ নাম্বার 01719551547 তবে অনুরুধ থাকবে শুধু মেসেজ দিবেন। সময় করে রিপ্লে করবো । যখন তখন কল দিবেননা।

সিয়া সিড এর উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম কি

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 7

Leave a Comment

অর্ডার করুন