লজ্জাস্থান বা যৌনাঙ্গের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

লজ্জাস্থান বা যৌনাঙ্গের দুর্গন্ধ দূর করার উপায় নিয়ে আজকের টিপসে থাকবে, যৌনাঙ্গের পরিচর্যা সহ বিস্তারিত। সবকিছুই পরিচর্যার প্রয়োজন হয়, নাহলে স্যাতস্যাতে থাকতে থাকতে দুর্গন্ধ ও ছত্রাকসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। আসুন জেনে নেয়া যাক, যৌনাঙ্গের পরিচর্যা সহ দুর্গন্ধ দূর করার উপায়।

যৌনাঙ্গের পরিচর্যা কিভাবে নিতে হয়

মহিলাদের যৌনাঙ্গের চতুর্পাশে সর্বদা লোম ও কেস মুক্ত রাখা উচিত এবং সময়ের ব্যবধানে নিয়মিতভাবে সেই সমস্ত জায়গার লোম বা চুলগুলো সেইভ করা উচিত। অনেক সময় গোপনাঙ্গে অত্যাধিক পশম থাকলে সেখানে ঘাম জমে যৌনাঙ্গে ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের স্বীকার হতে হয়।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 1

য়ে সমস্ত মহিলাদের শরীরে অত্যন্ত ঘাম হয়, সে সকল মহিলাদের অবশ্যই সারাদিনে ৬ থেকে ৮ গ্লাস পানি পান করা উচিত। নিয়মিতভাবে পানি পান করলে ঘামের দুগন্ধ অনেকটাই কমে যায়।

অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার জন্য অনেকেই লবনকে বেশী দায়ী করেন, যদিও এর বিজ্ঞানভিত্তিক যৌক্তিকতা কতটুকু তার প্রমান পাওয়া যায়নি। তবুও বেশী ঘাম হওয়া লোকদেরকে আমরা লবন কম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকি।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 2

এর সঙ্গে সঙ্গে মহিলারা তাদের প্রাইভেট পার্ট গুলোতে এন্টব্যাক্টেরিয়াল সুগন্ধি পাওডার লাগিয়ে ঘামের সঙ্গে মিশে থাকা ব্যাকটেরিয়া এবং যৌনাঙ্গের দুর্গন্ধের হাত থেকে পরিভ্রান পেতে পারেন।

মহিলারা গোসলের সময় ভালো মানের সুগন্ধি এন্টিব্যাক্টেরিয়াল সাবান কিংবা ভালো মানের বডি ওয়াশ ব্যবহার করে গোপনাঙ্গের দুগন্ধ তাড়াতে পারেন।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 3

দূর্লভ একটি পরামর্শ যদি গ্রহন করেন, তাহলে সস্তায় দিতে চাই। বাজারের নামকরা বড় দোকানে গিয়ে বলবেন “গ্যাকোটাচ” সাবান আছে কিনা। যদি থাকে, তাহলে এই সাবান দিয়ে নিয়মিত লজ্জাস্থান পরিস্কার করবেন। বিশেষ করে পিরিয়ডের সময় অবশ্যই গ্যাকোটাচ ব্যবহার করবেন।

পিরিয়ডের দিনগুলোতে সাধারণ কাপড় কিংবা স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার না করে, পিরিয়ডের সময় মেন্সট্রুয়াল কাপ (মাসিক কাপ) ব্যবহার করুন।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 4

যে সমস্ত মহিলাদের প্যান্টিতে চুঁইয়ে চুঁইয়ে প্রসাব আসে এবং প্যান্টি ভিজে যায় তাদের অবশ্যই ডাক্তারের কাছ থেকে পরামর্শ করা উচিত। এর জন্য আয়ুর্বেদ বা ইউনানি চিকিৎসাও বেটার হতে পারে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 5

পিরিয়ডের দিনগুলোতে অবশ্যই ফোটানো ঈষৎ গরম পানি, ডেটল কিংবা সুথল মিশিয়ে যৌনির ভাঁজের চামড়া গুলোতে লেগে থাকা রক্ত ধোয়া উচিত। এতে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে বাধা দিয়ে আপনাকে নিরাপদ রাখে।

Advertisements
Ad 6

সহবাস করার পর অবশ্যই মহিলাদের যৌনাঙ্গ ভালো করে ধুয়ে নিয়ে জীবাণুমুক্ত করে নেওয়া উচিত। অলসতা করে অনেকেই শুয়ে থাকেন, তাতে ঐ স্থান শুকিয়ে ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া জন্ম নিয়ে দুর্গন্ধ সহ চুলকানীর সৃষ্টি হতে পারে।

কখন লজ্জাস্থানে কোন কিছু ব্যবহার করতে পারবেননা

যখন গর্ভধারনের জন্য সহবাস করবেন, তারপর লজ্জাস্থান ধৌত করার সময় কোন প্রকার সাবান বা ক্যামিকেল লাগানো যাবেনা। কারন, এতে বীর্যে থাকা শুক্রানূর কোন ক্ষতি হওয়ার আশংকা থাকে। তাই শুধু মাত্র ঐ সময় এসব সাবান বা ক্যামিকেলস ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকবেন।

আরও কোন বিষয়ে জানার থাকলে কমেন্টে প্রশ্ন করবেন। পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। শুধু তাই নয়, রোগমুক্ত থাকার অন্যতম শর্ত হলো- পরিচ্ছন্নতা। ভাল থাকুন সুস্থ্য থাকুন।

আরও পড়ুন- হরিতকির উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 7

Leave a Comment

অর্ডার করুন