টাইমেক্স ট্যাবলেট কিসের ঔষধ জেনে নিন

টাইমেক্স ট্যাবলেট এ ফিল্ম কোটেড হিসাবে ক্লোমিপ্রামিন হাইড্রোক্লোরাইড ইউএসপি ২৫ মিগ্রা ঔষধ থাকে। যা ওরিয়ন ফার্মা লিমিটেড হতে প্রস্তুত ও বাজারজাত করা হয়।

টাইমেক্স ট্যাবলেট কি কাজ করে

মুলত একটি ত্রিচক্রিক বিষন্নতা বিরোধী ঔষধ, যা অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার এবং ভয়-ভীতিকর পরিস্থিতির চিকিৎসায় কার্যকর। অবসেসিভ কমপালসিভ ডিজঅর্ডার এ  ক্লোমিপ্রামিন হাইড্রোক্লোরাইড এর কার্যকারিতা সেরোটোনিন পূনঃঅধিগ্রহনে ও পূনঃবৃত্তি চিন্তা এবং অযৌক্তিক আচার ব্যাবহার নিয়ন্ত্রন করে। সেই হিসাবে এই ঔষধ এসব রোগীকে সামাজিক এবং পেশাগত কাজকর্মে স্বাভাবিক জীবনযাপনে সহায়তা করে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 1

টাইমেক্স কিসের ঔষধ 

টাইমেক্স সাধারনত তীব্র ভয়-ভীতি, দ্রুত বীর্যপাত, ক্যাটাপ্লেক্সি সহযোগে অতিনিদ্রালুতা, স্নায়ুবিকারগ্রস্থ, আঙ্গিক-প্রচ্ছন্ন, অন্তরাবর্তিত বিষন্নতা, মনোবিকার ও ব্যাক্তিত্ববিকার বিষন্নতা, রাত্রিকালিন বিছানা ভিজানো ইত্যাদি রোগের কার্যকরি ঔষধ।

টাইমেক্স ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম

টাইমেক্স ট্যাবলেট খাওয়ার প্রাথমিক নিয়ম- দিনে ২৫ মিগ্রা হিসাবে ১ বার, এই ট্যাবলেটটি রাতে শোবার সময় খেলে ভালো উপকার হয়। তবে রোগের অবস্থা বুঝে ধীরে ধীরে মাত্রা বাড়ানো যেতে পারে। প্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১৫০ মিগ্রা ও বৃদ্ধ রোগীর ক্ষেত্রে ৭৫ মিগ্রা পর্যন্ত দেয়া যেতে পারে। তবে শিশুদের ক্ষেত্রে টাইমেক্স নির্দেশিত নয়।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 2

প্রতিনির্দেশনা– যাদের ক্লোমিপ্রামিন হাইড্রোক্লোরাইড এর প্রতি অতিসংবেদনশীলতা রয়েছে, তাদের জন্য টাইমেক্স ট্যাবলেট প্রতিনির্দেশিত।

গর্ভাবস্থায় টাইমেক্স খাওয়া যাবে কিনা

টাইমেক্স ট্যাবলেট এর প্রেগ্ন্যান্সি ক্যাটাগরি-সি। গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে এই ঔষধের নিরাপত্তার উপর পর্যাপ্ত বা ভালভাবে পরিক্ষা না থাকায়, শুধুমাত্র ভ্রূণের উপর সম্ভাব্য ঝুঁকি অ রোগীর সুবিধার কথা চিন্তা করে, ব্যবহার করা উচিৎ।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 3

টাইমেক্স ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কি

ক্লোমিপ্রামিন হাইড্রোক্লোরাইড সাধারণত সুসহনীয়, টাইমেক্স ট্যাবলেট ব্যবহারে গ্যাষ্টোইন্টেস্টিনাল সমস্যা সম্পৃক্ত যেমন- শুষ্ক মুখ গহ্বর, কোষ্ঠকাঠিন্য, বমিবমি ভাব, বধজম, এবং ক্ষুধামান্দা ইত্যাদি।

ক্লোমিপ্রামিন হাইড্রোক্লোরাইড জাতীয় টাইমেক্স ট্যাবলেট এর অতিরিক্ত ব্যাবহার

এই জাতীয় ঔষধ অতিরিক্ত ব্যাবহারে ফলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই কোন অবস্থাতেই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া সেবন করবেননা।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 4

আরো পড়ুন- পুরুষাঙ্গ না দাঁড়ানোর কারন ও তার চিকিৎসা

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 5
অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 7

Advertisements
Ad 6

Leave a Comment

অর্ডার করুন