বাদামের উপকারিতা ও কিভাবে খেতে হবে তার বিস্তারিত

আসুন জেনে নিই বাদামের উপকারিতা গুলো কি কি। বাদাম হলো, আদর্শ একটি পুষ্টিকর খাবার, যা মানবদেহের বিভিন্ন ঘাটতি পূরণ ও ভিটামিন, খনিজ এবং আয়রনের যোগান দেয়ার উৎস হিসাবে কাজ করে। বাদামের রয়েছে বিভিন্ন ঔষধি গুনাগুন, পর্যায়ক্রমে বাদামের প্রজাতিসহ তার উপকারীতা সম্পর্কে আলোচনা করবো।

বাদামের পুষ্টিগুন

বাদামের পুষ্টিগুন ও শরীরের জন্য কতটুকু উপকারী তা বিবেচনা করলে, বাদামের জুড়ি নাই বললেই চলে। বাদামে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন, ভিটামিন-ই, বি-৬, ও সি, সেলেনিয়াম, আয়রন, ফাইবার, ওমেগা থ্রি এসিড, প্রজাতি অনুসারে অ্যামাইনো এসিড ও পটাশিয়াম রয়েছে। বলতে পারেন কি নাই বাদামের মধ্যে। ধীরে ধীরে কাজ ও খাওয়ার নিয়ম সহ আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 1

চিনা বাদামের উপকারিতা গুলো কি

বাদামের উপকারিতা গুলোর মধ্যে প্রথমত বলতে হয়, শারীরিক দূর্বলতা বা ক্লান্তিভাব দূর করে। যা প্রত্যেকের জন্য দরকার, কারন দূর্বলতা জনিত কারনে দৈনন্দিন কর্মপরিচালনায় অনেক ব্যঘাত ঘটে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি হওয়ায়, খুব ঘন ঘন বিভিন্ন রোগের আক্রমণ থেকে বাচাঁয়। পর্যায়ক্রমে আলাদা আলাদা করে উপকারীতাগুলো লিখে দেয়ার চেস্টা করছি।

হাড় গঠনে বাদামের উপকারিতা

বাদামে থাকা ফসফরাসের প্রভাবে হাড়ের গঠনপ্রণালীকে আরও শক্তিশালী করে গড়ে তুলে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির প্রতিদিন ৫০ গ্রাম বাদাম খাওয়ার অভ্যাস থাকলে, তাদের কখনও হাড় ফেটে যাওয়া বা হাড়ে ক্ষত হওয়ার মতো সমস্যাগুলো হয়না। শিশুদেরকে বাদামের গুড়ো দুধের সাথে মিশিয়ে খাওয়ালে হাড় ও শরীর গঠনে খুব সহায়ক হয়।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 2

বাদাম খেলে ব্রেইন চাঙ্গা হয়

বাদাম খেলে ব্রেইন চাঙ্গা হয় এবং নিয়মিত বাদাম খাওয়ার ফলে কোন প্রকার ব্রেন টনিকের প্রয়োজন হয়না। আমেরিকার এ্যান্ডোস ইউনিভার্সিটির গবেষকরা তাদের রিপোর্টে বলেছেন- বাদাম মস্তিষ্কের কার্যক্রম বৃদ্ধির জন্য বিশেষ ভুমিকা রাখে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিদিন অল্প অল্প করে বাদাম খাওয়ার ব্যাপারে তারা পরামর্শ দিয়েছেন। তদ্রুপ শিশুদের ব্রেনের জন্যও বাদাম বিশেষ উপকারী।

ক্যান্সারের আশংকা দূর করতে পারে বাদাম

বাদামের প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট আছে, আমরা লেখার শুরুতেও বলেছি। এই এন্টিঅক্সিডেন্ট যার শরীরে যতবেশী থাকবে, তারই ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি কম থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আর বাদামে এমন কিছু পুষ্টি উপাদান আছে, যা এন্টিভেসিভ ট্রেসকে কমিয়ে, ক্যান্সারের সেল গঠনকে বাধা প্রধান করতে পারে। সুতারাং নিয়মিত বাদাম ভোজনকারীদের জন্য অবশ্যই এটা একটা সুখবর বলা যেতে পারে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 3

পুষ্টি ঘাটতি দূর করতে পারে বাদাম

প্রতি ১০০ গ্রাম বাদামে ৬ গ্রাম প্রোটিন, ৩.৫ গ্রাম ফাইবার, ১৪ গ্রাম ফ্যাটসহ আছে বিভিন্ন ভিটামিন, খনিজ, ও মিনারলস যা আপনার শরীরের পুষিঘাটতি দূর করে, সুস্বাস্থ্যের জন্য সবরকমের যোগান দিবে। বাদাম শুধু একটি খাদ্য নয়, এটি সুসহনীয় পথ্যও বলতে পারেন। দেখবেন কয়েকদিন নিয়মিত বাদাম খাওয়ার ফলে আপনার মাংসপেশীতেও একটা উন্নতি চলে আসছে। এটাই পুষ্টির গুনাগুন বা বাদামের গুনাগুন। আপনি শুনলে অবাক হবেন- ১০০ গ্রাম বাদামে প্রায় ৬০০ ক্যালরী খাদ্যশক্তি আছে। বাদাম অতিরিক্ত ওজন কমাতেও সহায়তা করে।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে বাদামের উপকারিতা

ঘন ঘন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়া মানুষের অভাব নেই। কিছুদিন পর পর জ্বর, ইনফ্লুয়েঞ্জা, ইত্যাদি যাদের হতেই থাকে। তারা নিয়মিত বাদাম খেতে পারেন। বাদামের এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্ষমতা আপনার শরীরকে রোগমুক্ত রাখতে সহায়তা করবে। এর এন্টিভেসিভ ট্রেসকে কমিয়ে দেয়ার বিশেষ ক্ষমতা থাকায় বিভিন্ন কোষের ক্ষত রোধ করে, সেই সাথে অকাল বার্ধক্য রোধ করতেও সাহায্য করে।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 4

বাদাম আপনার ক্ষতিকর কোলেস্টেরল এর মাত্রা কমাতে পারে

বিভিন্ন পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, ক্ষতিকর কোলেস্টেরল এর বিরুপ প্রভাবে হার্ট অ্যাটাক এর ঝুঁকি থাকে। আর এসব নিয়ন্ত্রণে না থাকার হার্টের রোগী ক্রমশঃ বৃদ্ধি পেতে থাকে। তাই এসব ক্ষতিকর কোলেস্টেরলকে নিয়ন্ত্রণে রাখার কোন বিকল্প নাই। যেসমস্ত খাবার খেলে কোলেস্টেরল বৃদ্ধি পায়, তা পরিহার করতে হবে। পাশাপাশি যেসব খাবারে কোলেস্টেরলকে নিয়ন্ত্রণে রাখে তা খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। এখানে বাদামে থাকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ ও শরীরের জন্য উপকারী যে কোলেস্টেরল, তা বাড়িয়ে দেয়ার ফলে- ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা অনেকটা কম থাকে। তাই ক্ষতির আশংকা অনেকটাই কমে যায়।

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 5

কাজু বাদামের উপকারিতা

রাজকীয় আসনে থাকা কাজুবাদামে রয়েছে অন্যান্য বাদামের চেয়ে বাড়তি কিছু পুষ্টিগুন। ইংরেজিতে cashew nuts বলে ডাকা হয় এই বাদামকে। বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা কাজুবাদামকে প্রাকৃতিক ভিটামিন ট্যাবলেট বলেও আখ্যা দিয়য়েছেন। নিয়মিত কাজুবাদাম খেলে হার্টের দূর্বলতা দূর করে, অকাল বার্ধক্য ও ক্লান্তিভাবসহ অবসাদগ্রস্ততা দুর করবে। এছাড়াও চুলের বিভিন্ন সমস্যা সারিয়ে তুলে। চেহারায় গ্লোজিভাব ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে।

Advertisements
Ad 6

কাঠ বাদামের উপকারিতা জেনে নিন

কাঠ বাদাম ভিজিয়ে একটু নিয়ম করে খেলে, বিভিন্ন রোগের জন্য টনিক হিসাবে কাজ করে। কারন কাঠ বাদামে আছে-প্রচুর পরিমানে প্রোটিন, ভিটামিন ই, পটাশিয়াম ও ম্যগনেশিয়াম সহ ইত্যাদি খনিজ ও মিনারেলস। যা আপনাকে হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে পারে এবং আর্টারিকে আরও শক্তিশালী করে তুলে। এছাড়াও কোষের ক্ষমতা বৃদ্ধি, ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণের সহায়ক পথ্য হিসাবে এবং ওজন কমাতেও চমৎকার কাজ করবে নিয়মিত কাঠ বাদাম খেলে।

পেস্তা বাদামের উপকারিতা

পেস্তা বাদাম অনেকে মিষ্টান্ন খাবারের স্বাদ বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করলেও, তার হাজারও গুন আমরা জানিনা। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটা উপকার সম্পর্কে বলে রাখি। অন্যান্য বাদামের তুলনায় পেস্তা বাদামে এন্টিঅক্সিডেন্ট ও এ্যামাইনো এসিড বেশী থাকে। তবে ক্যালরী কম থাকায় অনেকে মনে করেন পেস্তা খেলে মানুষ মোটা হয়ে যায়। আসলে পেস্তা বাদাম খেলে ওজন কমায়ও। পেস্তা বাদাম খেলে খাদ্যানালীর ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি করার ফলে, পেট পরিস্কার রাখতে সাহায্য করে। এইচ ডি এল বা উপকারী কোলেস্টেরল বাড়ায়। রক্তনালীর এন্ডোথেলিয়াম এর কার্যকারীতা ধরে রাখে, এনডোথেলিয়াল ভ্যাসোডাইলেশন রক্তনালির সংকোচন ও প্রসারনের নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এছাড়াও পেস্তা বাদাম খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি সহ শরীরকে মারাত্মক ক্ষতির হাত থেকে বাচাঁতে সাহায্য করে।

বাদাম খাওয়ার নিয়ম কি

বাদাম খাওয়ার নিয়ম বলতে তেমন কিছুই নাই। তবে বাদামের মিক্স হলে এমনভাবে মিক্স করতে হবে, যেন প্রতি ৫০ গ্রামে সবগুলো বাদামই কমবেশী থাকে। যেমন ৩০% খোসা ছাড়ানো চিনাবাদামের সাথে ২০% কাজু বাদাম, ২০% কাট বাদাম ও ২০% খোসা ছাড়ানো পেস্তা বাদাম মিশাবেন। এর মধ্যে ১০% সাদা তিল মিশিয়ে প্রয়োজন অনুযায়ী মধু মিশিয়ে একটা কাচের বৈয়ামে রেখে প্রতিদিন একটি টেবিল চামচের ২ চামচ করে খেতে পারেন। এভাবে সকালে ও রাতে খেলে শরীরের জন্য খুব উপকারী।

বাদামের অপকারিতা গুলো কি

বাদামের অপকারিতা আমার তেমন জানা নেই। তবে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসাবে অতিরিক্ত বাদাম খেলে পেটের সমস্যা হতে পারে। কিন্তু তা খুব বিরল ক্ষেত্রেই দেখা যায়। এছাড়া তেমন কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা অপকারিতা হওয়ার কোন তথ্য এখনও পাইনি। পুষ্টিগুন ওয়েবসাইটের আরেকটি আয়েজন হচ্ছে অর্গানিক উপকারী খাদ্যগুলো সবার নিকট নিরাপদে পৌছে দেয়া।

আমাদের শপ থেকে চাইলে বিভিন্ন হারবাল পাউডার ও খাদ্যগুলো নিয়ে সেবন করে দেখতে পারেন, অন্তত যাচাই করার জন্য। লেখাটা কেমন লাগলো, কমেন্টে জানানোর একটা অনুরুধ করতেই পারি। সকলের সুস্থতা কামনা করা প্রত্যেক মুমিনের কাজ। ভাল থাকবে সেই কামনায় আল্লাহ হাফেজ।

আরও পড়ুন ইটোরিক্স ট্যাবলেট এর কাজ কি

অর্ডার করতে ক্লিক করুন
Ad 7

Leave a Comment

অর্ডার করুন